বাংলাদেশ বিষয়াবলী

সুনামগঞ্জ জেলার নামকরণ, ইতিহাস, দর্শনীয় স্থান, ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি

হাওরের জন্য বিখ্যাত জেলা সুনামগঞ্জ। সিলেট বিভাগের অন্তর্গত জেলাটি তার দৃষ্টিনন্দন সব হাওরের জন্য পর্যটকদের কাছে খুবই প্রিয়। সুনামগঞ্জের উত্তরে ভারতের মেঘালয় রাজ্য, দক্ষিণে হবিগঞ্জ ও কিশােরগঞ্জ জেলা, পূর্বে সিলেট এবং পশ্চিমে নেত্রকোনা জেলা অবস্থিত।

নামকরণ ও ইতিহাস

কথিত আছে, সুনাম উদ্দিন নামের এক মােগল সেনা তাঁর বীরত্বের জন্য মােগল সম্রাট কর্তৃক এ অঞ্চলের জমিদারি লাভ করেন। এরপর এখানে একটি বাজার স্থাপিত হয়, যার নাম রাখা হয় সুনামগঞ্জ। বর্তমান সিলেট বিভাগ প্রাচীনকালে তিনটি রাজ্যের অন্তর্ভুক্ত ছিল। তার মধ্যে সুনামগঞ্জ জেলা ছিল লাউড় রাজ্যের অংশ। পরবর্তীকালে এই লাউড় রাজ্য তাদের স্বাধীনতা হারালে এ অঞ্চল মােগলদের হাতে আসে এবং সুনাম উদ্দিন এখানে এসে গঞ্জ স্থাপন করেন। এ অঞ্চলের পূর্বনাম ছিল বনগাঁও। ১৮৭৭ সালে সুনামগঞ্জকে মহকুমা করা হয় এবং ১৯৮৪ সালে সিলেট জেলাকে যখন চার জেলায় ভাগ করা হয়, তখন সুনামগঞ্জ জেলা প্রতিষ্ঠিত হয়।

ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি

বিশেষজ্ঞদের মতে, সুনামগঞ্জের আঞ্চলিক ভাষা প্রাচীন চর্যাপদের ভাষার মতাে। সুনামগঞ্জের হাওর বাঁওড় ও নদীনালা এখানকার সংস্কৃতি সমৃদ্ধ করেছে। জারি-সারি, ভাটিয়ালির দেশ বলা হয় এই জেলাকে। আউল-বাউলের চারণভূমি সুনামগঞ্জ তার ঐতিহ্যের ধারা থেকে আজও বিচ্যুত হয়নি। সুনামগঞ্জ জেলায় মণিপুরি, খাসিয়া, হাজং, গারাে প্রভৃতি ক্ষুদ্র জাতিগােষ্ঠীর বসবাস রয়েছে।

একনজরে সুনামগঞ্জ জেলা
প্রতিষ্ঠাকাল ১৯৮৪
আয়তন ৩,৭৪৭.১৮ বর্গ কিলোমিটার
সংসদীয় আসন ৫টি
উপজেলা ১২টি
থানা ১২টি
পৌরসভা ৪টি
ইউনিয়ন ৮৭টি

দর্শনীয় স্থান

  • গৌরারং জমিদারবাড়ি
  • ছাতক সিমেন্ট কারখানা
  • ডলুরা শহীদদের সমাধিসৌধ
  • বারেকের টিলা
  • পাইলগাঁও জমিদারবাড়ি
  • সুনামগঞ্জ ঐতিহ্য জাদুঘর
  • হাসন রাজার স্মৃতিবিজড়িত জমিদারবাড়ি
  • শিমুলবাগান
  • নীলাদ্রি লেক
  • হাওলি জমিদারবাড়ি

বিখ্যাত ব্যক্তিত্ব

  • মহাপ্রভু অদ্বৈত আচার্য
  • ধামাইল নৃত্যের প্রবর্তক কবি রাধারমণ দত্ত
  • মরমি কবি হাসন রাজা
  • বাউলসম্রাট শাহ আবদুল করিম
  • বীর প্রতীক কাকন বিবি
  • সাবেক রেলমন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত
  • চিত্রশিল্পী ধ্রুব এষ
  • লােকসংগীতশিল্পী নির্মলেন্দু চৌধুরী
  • সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুস সামাদ আজাদ
  • বিপ্লবী সুহাসিনী দাস

জলাশয়

  • সুরমা
  • কুশিয়ারা
  • ধামালিয়া
  • যাদুকাটা
  • বাগড়া
  • ডাহুকা
  • সানুয়াডাকুয়া হাওর
  • বাউলী
  • টাঙ্গুয়ার হাওর
  • শনির হাওর
  • মাটিয়ান হাওর
  • দেখার হাওর
  • হালির হাওর
  • কড়চা হাওর
  • আঙ্গরখালী হাওর
  • সােমেশ্বরী
  • শৈল চকরা হাওর
  • হালিয়ার হাওর
  • চন্দ্রসােনার থাল হাওর প্রভৃতি।

সুনামগঞ্জ জেলাসম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ কিছু প্রশ্ন

  • হাওরকন্যা নামে পরিচিত জেলা- সুনামগঞ্জ
  • টাঙ্গুয়ার হাওর (বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় হাওর) অবস্থিত—সুনামগঞ্জে।
  • টাঙ্গুয়ার হাওরকে বাংলাদেশের দ্বিতীয় ‘রামসার সাইট’ হিসেবে ঘােষণা করা হয়—২০ জানুয়ারি ২০০০।
  • সরকার টাঙ্গুয়ার হাওরকে ‘প্রতিবেশগত সংকটাপন্ন এলাকা ঘােষণা করে—১৯৯৯ সালে।
  • নারী মুক্তিযােদ্ধা কাঁকন বিবির জন্ম—সুনামগঞ্জ জেলায়।
  • মুক্তিবেটি নামে পরিচিত কাকন বিবি ছিলেন—খাসিয়া সম্প্রদায়ের।
  • স্বাধীনতাযুদ্ধে সুনামগঞ্জ জেলা ছিল জাতীয়ভাবে বিভক্ত—সেক্টর-৫-এর অন্তর্গত।
  • সুনামগঞ্জ মহকুমা প্রতিষ্ঠিত হয়—১৮৭৭ সালে।
  • সুনামগঞ্জ জেলা প্রতিষ্ঠিত হয়—১৯৮৪ সালে।
  • সুনামগঞ্জ জেলার পৌরসভা—৪টি (সুনামগঞ্জ, ছাতক, দিরাই ও জগন্নাথপুর)।
  • সুনামগঞ্জ জেলার সংসদীয় আসন সংখ্যা—৫টি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button