তথ্য যোগাযোগ ও প্রযুক্তি

সফটওয়্যার ইনস্টলেশন ও আনইনস্টলেশন

আমরা সবাই জানি আইসিটি যন্ত্রগুলাে সফটওয়্যারের মাধ্যমে পরিচালিত হয়। এ সফটওয়্যারগুলাে কম্পিউটার বা অন্যান্য যন্ত্রে ইনস্টল করতে হয়। আমরা যখন কোনাে আইসিটি যন্ত্র কিনি তখন বিক্রেতা সাধারণত আমাদের জিজ্ঞাসা করে আমাদের কোন কোন সফটওয়্যার প্রয়ােজন। অতঃপর অপারেটিং সফটওয়্যারসহ অন্যান্য প্রয়ােজনীয় সফটওয়্যারগুলাে বিশেষজ্ঞ দিয়ে ইনস্টল করে বিক্রেতা যন্ত্রটি আমাদের কাছে হস্তান্তর করে।

এভাবে আমরা নিজেদের প্রয়ােজনমতাে আইসিটি যন্ত্র তথা কম্পিউটার, ট্যাবলেট, স্মার্টফোন ইত্যাদি ব্যবহার করতে পারি। অপারেটিং সিস্টেম সফটওয়্যার ইনস্টল করার প্রক্রিয়া একটু জটিল এবং এর জন্য কিছু বিশেষ দক্ষতার প্রয়ােজন হয়। এ কাজটি নিয়ে আমরা পরবর্তী শ্রেণিতে আলােচনা করব।

আরো পড়ুন : 

অপারেটিং সিস্টেম সফটওয়্যার ছাড়াও আইসিটি যন্ত্র ব্যবহার করতে আমাদের বিভিন্ন ধরনের সফটওয়্যার প্রয়ােজন হয়। এ সফটওয়্যারগুলাে ব্যবহারকারীর যন্ত্রটি ব্যবহারের উদ্দেশ্যের ভিত্তিতে ইনস্টল করতে হয়।

কোনো সফটওয়্যার ইনস্টল কর পূর্বে নিচে বিষয়গুলাে লক্ষ রাখা প্রয়োজন:

  • যে সফটওয়্যার ইনস্টলকা হবে তােমার অন্যের হার্ডওয়্যার সাপাের্ট করে কিনা,
  • read me ফাইলটিতে জরুরি কিছু কাজের কথা লেখা আছে কিনা পড়ে নিতে হবে;
  • ইনস্টলেশনের সময় অন্য সকল কাজ ফল আছে কিনা (ফখ না থাকলে অনেক সময় নতুন সফটওয়্যার ইনস্টল করতে ঝামেলা হয়);
  • এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার বম্ব আছে কিনা এবং
  • অপারেটিং সিস্টেমে এমিনিস্ট্রেটরের অনুমতি আছে কিনা (বিশেষ কোনাে যন্ত্র ছাড়া প্রায় সব যন্ত্রের এ অনুমােন দেওয়া থাকে। বিষয়টি সম্পর্কে আশমা পরবর্তী শ্রেণিতে কিরিত জলি)।

অপারেটিং সিস্টেম সফটওয়্যার ছাড়া অন্যান্য সফটওয়্যার ইনস্টল করার প্রক্রিক্সা অনেকটাই অপারেটিং সিস্টেমের ওপর নির্জ করে। কাৰে এ প্রক্রিয়া অনেকটা একই ধরনের। কেননা সফটওয়্যার ইনস্টল করছে হলে প্রথমেই আমাদের সফটওয়্যারটি সফট বা ডিজিটাল কপি প্রয়োজন হবে।

এ সফট কপিটি সিন্ডি, ডিভিডি, পেনড্রাইভ বা ইন্টারনেট থেকে পাওয়া যেতে পারে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সফটওয়্যারগুলাের পাশে Auto run নামে একটি গ্রাম সংকু অবশয় থাকে। তােমাদের কম্পিউটাব্রে সিডি, ডিভিডি বা পেন্ড্রাইভ প্রবেশ করালে Auto run প্রামটি সলে হয়ে যায় এবং সফটওয়্যালিটি setup করার অনুমতি চায়।

অনুমতি প্রদান করার পর পরবৰ্তী ধাপগুলাে অনুসরণ করলেই সফটওয়্যারটি ডােমার যন্ত্রে ইনস্টল হয়ে যাবে। সাধারণত যন্ত্রটি restart করলেই ইনস্টলকৃত শ্ৰেগ্ৰামটি বার করা শুরু করা যায়। একটি সফটওয়্যার ইনস্টল করার শপগুলো দেখানো হলাে : প্রথমে সফটওয়্যারের সেটাপ ফাইলে ডাবল ক্লিক করতে হবে। যেমন, নিচের চিত্র-১ একটি সেটআপ ফাইল। এটাতে ডাবল ক্লিক করলে ইনস্টলেশন শুরু হবে।

সফটওয়্যার ইনস্টলেশন ও আনইনস্টলেশন

সফটওয়্যার ইনস্টলেশন ও আনইনস্টলেশন

সফটওয়্যার আনইনস্টলেশন

ইনস্টল করতে শিখে ফেললে! এখন মনে কর ইনস্টল করা কোনাে একটি সফটওয়্যার ব্যবহার করার আর ৪ প্রয়ােজন নেই। তাহলে আমরা কী করব? বেশিরভাগ ব্যবহারকারী সফটওয়্যারটি তার যন্ত্রেই রেখে দেয়। কিন্তু এতে হার্ডডিস্কের অনেকটা জায়গা নষ্ট হয়। আবার অনেক সময় আইসিটি যন্ত্রটি পরিচালনা করতে ঝামেলা সৃষ্টি করে। তাই বুদ্ধিমানের কাজ হলাে অপ্রয়ােজনীয় সফটওয়্যার আনইনস্টল করে ফেলা।

এখন প্রশ্ন হলাে আনইনস্টল কীভাবে করব? এ কাজটি করতেও অপারেটিং সিস্টেম সফটওয়্যার আমাদের সাহায্য করে থাকে। প্রায় সব অপারেটিং সিস্টেমের কাজের ধরন একই। তবে এন্ড্রয়েড চালিত যন্ত্র বিশেষ করে হারে আঙ্গুলের স্পর্শ দ্বারা পরিচালিত অর্থাৎ টাচস্ক্রিনযুক্ত স্মার্টফোনগুলাে থেকে সফটওয়্যার আনইনস্টল করা খুবই সহজ। সেটিংস থেকে অ্যাপ্লিকেশন সিলেক্ট করে নির্দিষ্ট সফটওয়্যারটিতে টাচ করলে পর্দায় একটি মেনু আসবে। সেখানে আনইনস্টল লেখা জায়গায় টাচ করার পর সফটওয়্যারটি আনইনস্টল হয়ে যাবে।

মাইক্রোসফট উইন্ডােজ-এর অপারেটিং সিস্টেম যা কিনা বিশ্বের বেশিরভাগ মানুষ তাদের আইসিটি যন্ত্রে তথা কম্পিউটারে ব্যবহার করে থাকে, সেসব যন্ত্র হতে সফটওয়্যার আনইনস্টল করতে হলে নিচের ধাপগুলাে অনুসরণ করতে হবে। প্রথমে স্টার্ট বাটন থেকে কন্ট্রোল প্যানেলে যেতে হবে। অতঃপর ডাবল ক্লিক করে অ্যাড অর রিমুভ অথবা ‘আনইনস্টল প্রােগ্রাম’ -এ ঢুকতে হবে।

সফটওয়্যার আনইনস্টলেশন

এরপর যে প্রােগ্রামটি আনইনস্টল করতে চাও সেটি খুঁজে ক্লিক করে আনইনস্টলে ক্লিক করলেই ফাইলটি আনইনস্টল হতে শুরু করবে। ফাইল বড় হলে আনইনস্টল হতে একটু বেশি সময় লাগতে পারে। আনইনস্টল করার পর সাধারণত কম্পিউটার রিস্টার্ট করতে হয়। তবে কোনাে সফটওয়্যার আনইনস্টল করার সময় নিশ্চিত হয়ে তা করতে হবে। অন্যথায় ভুক্ৰমে এমন সফটওয়্যার আনইনস্টল হতে পারে, যার কারণে তােমার যন্ত্রটিতে পুনরায় সফটওয়্যারটি ইনস্টল করা ছাড়া চালানাে সত্ব নাও হতে পারে। তাই এক্ষেত্রে আমাদের সতর্ক থাকতে হবে।

সফটওয়ার ডিলিট

আমরা জানি ডিলিট অর্থ মুছে ফেলা। মূলত সফটওয়্যাক্স আনইনস্টল কক্সর মাধ্যমে আমরা আমাদের আইসিটি য যতে ইনস্টল করা যেকোনাে সফটওয়্যরি মুছে ফেলতে পারি। নিই প্রশ্ন জাগছে তাহলে প্পিলিট দিয়ে কী করব? কম্পিউটার বা অন্য যেকোনাে আইসিটি বয়ে কোনাে সফটওয়্যার একবার ইনস্টল করলে আনইনস্টলের মাধ্যমে দ্যা সম্পূর্ণ মূহ ফেলা যায় না।

আবার নিয়ম না মেনে শুধু সফটওয়্যারটি ডিলিট করে দিলে সফটওয়্যারটি মুছে জে যায়ই না বরং আরাে সমস্যা তৈরি করে। আনইনষ্টল করলে সফটওয়্যারটির কিছু অংশ অপারেটিং সিস্টেমের ব্লেজিস্ট্রি ক্ষাইল পেকে যায়। নিয়ম অনুসরণ করে ডিলিট করলে যেকোনাে সফটওয়্যার সম্পূর্ণভাবে মুছে ফেলা সন। নিচে নিয়মটি দেখানো হলো। এ কাজটি করতে আমাদের সর্ক থাকতে হবে। ডিলিট করতে যা করতে হবে : প্রথমে পূর্বের নিয়মে সফটওয়্যারটি আনইনস্টল করতে হবে। পরে নিচের খাপলুলাে অনুসন্ত্রণ করতে হবে।

সফটওয়ার ডিলিট

১. প্রথমে কীবাের্ডের Start Button + r একসাথে চেপে Run Command চালু করতে হবে। তারপর regedit লিখে ok লিখে ক্লিক করতে হবে।
২. ফাইল মেনুতে প্রবেশ করতে হবে।
৩. Export-এ ক্লিক করতে হবে।

সফটওয়ার ডিলিট

৪. অপারেটিং সফটওয়্যার যে ড্রাইভে রয়েছে অর্থাৎ C সিলেক্ট করতে হবে।

সফটওয়ার ডিলিট
৫. নাম দিয়ে ফাইলটি সেকতে হবে। এটি খুবই জরুরি। কোনাে ভুল হলে যাতে সিস্টেম ঠিক করা যায়।

সফটওয়ার ডিলিট
৬ . অত:পর edit এ প্রবেশ করতে হবে।

সফটওয়ার ডিলিট
৭. Find এ যেতে হবে।
৮. যে সফটওয়্যারটি ডিলিট করতে চাই তার নাম খুঁজতে হবে, যেমন এখানে AUDIALS
৯. Find Next-এ ক্লিক করতে হবে।

সফটওয়ার ডিলিট

১০. এভাবে সিলেক্ট করতে হবে।
১১. এবার ডান বাটন ক্লিক করে Delete -এ ক্লিক করে করতে হবে।

সফটওয়ার ডিলিট

১২. সবশেষে কীবাের্ডের F3 চেপে রেজিস্ট্রির সব জায়গা থেকে ঐ নামের ফাইলগুলাে মুছে দিতে হবে। এভাবেই সম্পূর্ণ হবে। পুরাে সফটওয়্যার ডিলিট করার প্রক্রিয়া।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button