বিসিএস ডাইজেস্ট

মুঘল শাসনামলে বাংলা

মুঘল সাম্রাজ্যের প্রতিষ্ঠাতা জহির উদ্দিন মুহম্মদ বাবর (১৫২৬); বাবর শব্দের অর্থ— বাঘ, সম্রাট বাবর রচিত আত্মজীবনীর নাম- তুযুক-ই-বাবর বা বাবরনামা।

সম্রাট আওরঙ্গজেব এর পরবর্তী বংশধর – দ্বিতীয় বাহাদুর শাহ। এজন্য মূলত: আওরঙ্গজেবকে সম্রাট বাবরের শেষ বংশধর হিসেবে গণ্য করা হয়।

{বাবর থেকে আওরঙ্গজেব মনে রাখুন এভাবে বাবার (বাবর) হইল (হুমায়ূন) আবার (আকবর) জ্বর (জাহাঙ্গীর) সারিল (সাজাহান) ঔষধে (ঔরঙ্গজেব বা আওরঙ্গজেব)।}।

মুঘল সাম্রাজ্যের শ্রেষ্ঠ শাসক- সম্রাট আকবর; তিনি বাংলা জয় করেন- ১৫৭৫ সালে; সম্রাট আকবর প্রবর্তিত ধর্মের নাম দীন-ই-ইলাহী।

ই-বাঙ্গালা’ নামে পরিচিতি লাভ করে- সম্রাট আকবরের সময়।

এই বিভাগ থেকে আরো পড়ুন

সম্রাট আকবরের রাজসভার গায়ক তানসেনকে বলা হয়- বুলবুল-ই-হিন্দ; তাঁর রাজসভার বিখ্যাত কৌতুককার ছিলেন- বীরবল।

মুঘল সম্রাট হুমায়ুন বাংলার নাম দেন জান্নাতাবাদ; হুমায়ুনকে পরাজিত করে দিল্লির সিংহাসনে বসেন- শেরশাহ।

ভারতবর্ষে ঘােড়ার ডাকের প্রবর্তক শেরশাহ; গ্র্যান্ড ট্রাঙ্ক রােডের নির্মাতা- শেরশাহ; গ্র্যান্ড ট্রাঙ্ক রােডের অপর নাম— সড়ক-ই-আজম; শেরশাহ চালুকৃত মুদ্রার নাম— দাম।

বাংলায় বার ভূঁইয়াদের উত্থান ঘটে— সম্রাট আকবরের সময়।

বার ভূঁইয়াদের শ্রেষ্ঠ ভূঁইয়া ঈশা খান।

ঈশা খান বাংলার রাজধানী প্রতিষ্ঠিত করেন- সােনারগাঁওয়ে।

পানি পথের প্রথম যুদ্ধ—১৫২৬, দ্বিতীয় যুদ্ধ- ১৫৫৬, তৃতীয় যুদ্ধ- ১৭৬১।

পানিপথ অবস্থিত দিল্লির অদূরে যমুনা নদীর তীরে, ভারতবর্ষে প্রথম কামানের ব্যবহার হয় পানি পথের প্রথম যুদ্ধে।

পানিপথের ১ম যুদ্ধে ইব্রাহিম লােদি বাবরের বাহিনীর নিকট পরাজিত হন, পানি পথের ২য় যুদ্ধে- আফগান নেতা হিমু আকবরের সেনাপতি বৈরাম খানের নিকট পরাজিত হন এবং পানি পথের ৩য় যুদ্ধে মারাঠারা আহমদ শাহ আবদালির নিকট পরাজিত হন।

আইন-ই-আকবরীর রচয়িতা- আবুল ফজল।

এই গ্রন্থে বাংলা (দেশ ও ভাষা) নামের উৎপত্তির বিষয়টি সর্বাধিক উল্লেখিত হয়েছে।

তাজমহল ও ময়ূর সিংহাসনের নির্মাতা- সম্রাট শাহজাহান; দিল্লি আক্রমণ করে কোহিনুর ও ময়ূর সিংহাসন লুট করেন নাদির শাহ।

বাংলার প্রথম সুবেদার ইসলাম খা; তিনি প্রথম বাংলার রাজধানী স্থাপন করেন ঢাকায় (১৬১০); ঢাকার নামকরণ করেন— জাহাঙ্গীরনগর। ঢাকা প্রথম রাজধানী হয়— ১৬১০ সালে।

ঢাকার ধােলাই খাল নির্মাণ করেন—ইসলাম খা; লালবাগ দুর্গ নির্মাণ করেন শায়েস্তা খান।

বাংলাদেশের প্রথম স্বাধীন নবাব-মুর্শিদকুলি খান (কেননা তিনি বাংলা, বিহার ও উড়িষ্যার প্রথম স্বাধীন নবাব ছিলেন)।

শেষ মুঘল সম্রাট বাহাদুর শাহ জাফর বা দ্বিতীয় বাহাদুর শাহ, তাঁর কবর- ইয়াঙ্গুন।

বাংলার শেষ স্বাধীন নবাব সিরাজউদ্দৌলা।

পলাশী যুদ্ধ সংগঠিত ১৭৫৭ সালের ২৩ জুন; ভাগিরথী নদীর তীরে, এ যুদ্ধের মধ্য দিয়ে ভারতের ইতিহাসে নতুন যুগের সূচনা হয়।

পলাশী যুদ্ধে ইংরেজ বাহিনীর নেতৃত্বে ছিলেন রবার্ট ক্লাইভ; নবাব বাহিনীর নেতৃত্বে ছিলেন— মীর জাফর।

সিরাজউদ্দৌলার প্রকৃত নাম— মির্জা মােহাম্মদ; পিতার নাম জয়েন উদ্দিন; মাতার নামআমিনা বেগম; তাঁর বিরুদ্ধে প্রসাদ ষড়যন্ত্র করেন- ঘসেটি বেগম।

বক্সারের যুদ্ধ সংগঠিত হয়— ২২ অক্টোবর, ১৭৬৪ সালে; এ যুদ্ধে ইংরেজদের নিকট শােচনীয় পরাজয় বরণ করেন- মীর কাসিম।

অন্ধকূপ হত্যা কাহিনী তৈরি করেন— হলওয়েল; হলওয়েল মনুমেন্ট হলাে- সিরাজউদ্দৌলার বিরুদ্ধে নির্মিত মনুমেন্ট।

Bcs Preparation

BCS Preparation provides you with course materials and study guides for JSC, SSC, HSC, NTRCA, BCS, Primary Job, Bank and many other educational exams.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button