Categories
বাংলা সাহিত্য

বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ কিছু প্রশ্নোত্তর একসাথে

বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ কিছু প্রশ্নোত্তর একসাথে

প্রশ্ন : আধুনিক বাংলা ভাষার পরিধি কত সাল থেকে শুরু হয়েছে ?
উত্তর : ১৮০১ সাল থেকে।

প্রশ্ন : বাংলা ভাষার উৎপত্তি কোন শতাব্দীতে?
উত্তর : সপ্তম শতাব্দী।

প্রশ্ন : পানিনি রচিত গ্রন্থের নাম কি?
উত্তর : ব্যাকরণ অষ্টাধয়ী।

প্রশ্ন : পানিণি কোন ভাষার ব্যাকরণকে শৃঙ্খলাবদ্ধ করেন?
উত্তর : সংস্কৃত ভাষা।।

প্রশ্ন : বাংলা ভাষার মূল উৎস কোনটি?
উত্তর : বৈদিক।

প্রশ্ন : বাংলা ভাষার আদি সাহিত্যিক নিদর্শন কি?
উত্তর : শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্য।

প্রশ্ন : বাংলা ভাষা কোন আদি বা মূল ভাষা গােষ্ঠীর অর্ন্তগত?
উত্তর : ইন্দো-ইউরােপীয় ভাষা গােষ্ঠী।

প্রশ্ন : বাংলা ভাষার উদ্ভব ঘটে কোন দশকে?
উত্তর : খ্রিষ্টিয় দশম শতকের কাছাকাছি সমযে।

প্রশ্ন : ভারতীয় আর্য ভাষার প্রাচীন রূপ কোথায় পাওয়া যায়?
উত্তর : প্রাচীন গ্রন্থ ঋগ বেদের মন্ত্রগুলােতে।।

প্রশ্ন : বাংলা গদ্যের ব্যাপক ব্যবহার শুরু হয় কখন থেকে?
উত্তর : আধুনিক যুগে।।

প্রশ্ন : বাংলা গদ্যের ব্যাপক ব্যবহার শুরু হয় কখন থেকে?
উত্তর : আধুনিক যুগে।

প্রশ্ন : ড. মুহাম্মদ শহীদুল্লাহর মতে খ্রীষ্টপূর্ব কত পর্যন্ত বাংলা ভাষার অস্তিত্ব ছিল?
উত্তর : পাঁচ হাজার বছর।

প্রশ্ন : আর্য ভারতীয় গােষ্ঠীর প্রাচীনতম সাহিত্যেক ভাষার নাম কি?
উত্তর : বৈদিক ও সংস্কৃত ভাষা।

প্রশ্ন : বাংলা ভাষার মূল উৎস কোন ভাষা?
উত্তর : বৈদিক ভাষা।

প্রশ্ন : বৈদিক ভাষা থেকে বাংলা ভাষা পর্যন্ত বিবর্তনের প্রধান তিনটি ধারা কি কি?
উত্তর : প্রচীন ভারতীয় আর্য, মধ্য ভারতীয় আর্য ও নব্য ভারতীয় আর্য।

প্রশ্ন : কোন ভাষা বৈদিক ভাষা নামে স্বীকৃত?
উত্তর : আর্যগণ যে ভাষায় বেদ-সংহিতা রচনা করেছেন।

প্রশ্ন : কোন ব্যাকরণবিদের কাছে সংস্কৃত ভাষা চূড়ান্তভাবে বিধিবদ্ধ হয়?
উত্তর : ব্যাকরণবিদ পানিনির হাতে।

প্রশ্ন : সংস্কৃত ভাষা কত অব্দে চূড়ান্তভাবে বিধিবদ্ধ হয়?
উত্তর : খ্রিষ্টপূর্ব ৪০০ দিকে।

প্রশ্ন : কোন ভাষাকে প্রাকৃত ভাষা বলে?
উত্তর : খ্রিষ্টপূর্ব ৮০০ খ্রীঃ দিকে বৈদিক ভাষা বির্বতনকালীণ সময়ে জনসাধারন যে ভাষায় নিত্য নতুন কথা বলত।

প্রশ্ন : প্রাকৃত ভাষা বিবর্তিত হয়ে শেষ যে স্তরে উপনীত হয় তার নাম কি?
উত্তর : অপভ্রংশ।

প্রশ্ন : সুনীত কুমার চট্টোপাধ্যাযের মতে বাংলা ভাষার উদ্ভর কোন অপভ্রংশ থেকে কোন সময় কালে?
উত্তর : পূর্ব ভারতে প্রচলিত মাগবী অপভ্রংশ এবং খ্রিষ্টিয় দশম শতকের কাছাকাছি সময়ে বাংলা ভাষার উদ্ভব হয়।

প্রশ্ন : ড. মুহাম্মদ শহীদুল্লাহর মতে বাংলা ভাষার উৎস কোন অপভ্রংশ থেকে?
উত্তর : গৌড় অপভ্রংশ থেকে।

প্রশ্ন : কোন ভাষা থেকে বাংলা ভাষার উৎপত্তি?
উত্তর : মাগধী প্রাকৃত।

প্রশ্ন : প্রাচীন ভারতীয় আর্য ভাষার স্তর কয়টি?
উত্তর : তিনটি।

প্রশ্ন : বৈদিক ভাষা হতে বাংলা ভাষায় বিবর্তনের প্রধান ধারা কয়টি?
উত্তর : তিনটি।

প্রশ্ন : বাংলা ভাষা কোন গােষ্ঠীর বংশধর?
উত্তর : হিন্দ-ইউরােপী গােষ্ঠীর।

প্রশ্ন : কোন যুগে বাংলা লিপির গঠনকার্য স্থায়ীরূপ লাভ করে?
উত্তর : প্রাচীন যুগে।

প্রশ্ন : বাংলার প্রথম মুদ্রন প্রতিষ্ঠানের নাম কি ?
উত্তর : শ্রীরামপুর মিশন।

প্রশ্ন : কত সালে শ্রীরামপুর মিশন’ প্রতিষ্ঠিত হয় ?
উত্তর : ১৮০০ খ্রিষ্টাব্দে।

প্রশ্ন : বাংলা ছাড়া ব্রাহ্মী লিপি থেকে আর কোন লিপির উদ্ভদ ঘটেছে ?
উত্তর : সিংহলী, শ্যামী, নবদ্বীপি, তিব্বতী ইত্যাদি।

প্রশ্ন : বাংলা অক্ষর বা বর্ণমালা কোন সমযে একচ্ছত্র প্রভাব বিস্তার লাভ করে ?
উত্তর : খ্রিঃ দশম ও একাদশ শতাব্দীর মধ্যে।।

প্রশ্ন : ব্রাহ্মী লিপির বিবর্তনের ধারায় কোন বর্নমালা থেকে বাংলা বর্নমালার উৎপত্তি ?
উত্তর : পূর্ব ভারতীয় বর্ণমালা কুটিল থেকে।

প্রশ্ন : ব্রাহ্মী লিপির পূর্ববর্তী লিপি কোনটি?
উত্তর : খরােষ্ঠী লিপি।।

প্রশ্ন : ভারতীয় লিপিশালার প্রাচীনতম রূপ কোনটি?
উত্তর : দুইটি।

প্রশ্ন : খ্রিষ্টপূর্ব ৩য় শতকে কোন শাসকের শাসনমালা ব্রাহ্মী লিপিতে উৎকীর্ন পাওয়া যায়?
উত্তর : সম্রাট অশােক।

প্রশ্ন : বাংলা লিপি ও বর্ণমালার উদ্ভব হয়েছে কোন লিপি থেকে?
উত্তর : কুটিল লিপি।

প্রশ্ন : ব্রাহ্মী লিপির পূর্ববর্তী লিপি কোনটি ?
উত্তর : খরােষ্ঠী লিপি।

প্রশ্ন : কোন যুগে বাংলা লিপি ও অক্ষরের গঠনকার্য শুরু হয় ?
উত্তর : সেন যুগে।।

প্রশ্ন : কোন কোন লিপির উপর বাংলা লিপির প্রভাব বিদ্যমান ?
উত্তর : উড়িষ্যা মৈথিলি ও আসামী লিপির উপর।

প্রশ্ন : বাংলা গদ্যের বিকাশে বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করে?
উত্তর : সাময়ীক পত্র।

প্রশ্ন : বাংলা সাহিত্যের প্রথম নিদর্শন কি?
উত্তর : চর্যাপদ।।

প্রশ্ন : চর্যাপদ রচনা করেন কারা ?
উত্তর : বৌদ্ধ সিদ্ধাচার্যগণ।।

প্রশ্ন : চর্যাপদ কোন যুগের নিদর্শন?
উত্তর : আদি/ প্রাচীন যুগ।

প্রশ্ন : চর্যাপদের পুঁথিকে কোথা কে এবং কথন আবিস্কার করেন?
উত্তর : মহামহােপাধ্যায় হরপ্রসাদ শাস্ত্রী ১৯০৭।

প্রশ্ন : চর্যাপদের রচনা কাল কত?
উত্তর : সপ্তম -দ্বাদশ শতাব্দী।

প্রশ্ন : চর্যাপদ কোন ভাষায় রচিত হয়?
উত্তর : বঙ্গকামরুপী ভাষায়।।

প্রশ্ন : চর্যাপদ কোথায় পাওয়া যায়?
উত্তর : নেপালের রাজ দরবারের গ্রন্থাগারে।

প্রশ্ন : টীকাকার মুনিদত্তের মতানুসারে চর্যাপদের নাম কি ?
উত্তর : আশ্চর্য চর্যাচয়।

প্রশ্ন : নেপালে প্রাপ্ত পুঁথিতে পদগুলির কি নাম দেয়া হয়েছে ?
উত্তর : চর্যাচর্য বিনিশ্চয়।

প্রশ্ন : বাংলা ভাষার সঙ্গে মিল খুঁজে পাওয়া যায় কোন ভাষার?
উত্তর : মুন্ডা ভাষার।

প্রশ্ন : কোন লিপি থেকে বাংলা লিপির উদ্ভব ঘটেছে?
উত্তর : ব্রহ্মী লিপি।

প্রশ্ন : ভারতীয় লিপিমালার প্রাচীনতম রূপ কয়টি ও কি কি?
উত্তর : দুইটি ক. খরােষ্ঠী, খ. বাহ্মী।

প্রশ্ন : ভারতের মৌলিক লিপি কোন লিপিকে বলা বলে?
উত্তর : ব্রাহ্মী লিপি।

প্রশ্ন : চর্যাপদের ভাষাকে কে বাংলা ভাষা দাবি করেছেন?
উত্তর : অধ্যাপক সুনীতি কুমার চট্টোপাধ্যয়।

প্রশ্ন : আধুনিকের পন্ডিতগণের মতে, নেপালে প্রাপ্ত চর্যাপদের পুঁথির নাম কি ?
উত্তর : চর্যাগীতি কোষ।

প্রশ্ন : চর্যার প্রাপ্ত কোন সংখ্যক পদটি টীকাকার কর্তৃক ব্যাখ্যা হয় নি ?
উত্তর : ১১ সংখ্যক পদ।

প্রশ্ন : চর্যার প্রাপ্ত পুঁথিতে কোন কোন সংখ্যক পদে সম্পূর্ণ পাওয়া যায় নি ?
উত্তর : ২৪, ২৫, ৪৮ সংখ্যক পদ।

প্রশ্ন : চর্যার প্রাপ্ত কোন পদটির শেষাংশে পাওয়া যায় নি ?
উত্তর : ২৩ সংখ্যক পদ।

প্রশ্ন : চর্যাগীতিকা হরপ্রসাদ শাস্ত্রী কর্তৃক কবে প্রকাশিত হযেছিল ?
উত্তর : ১৯১৬ সালে।

প্রশ্ন : চর্যা সংগ্রহটিতে সর্বসমেত কয়টি চর্যাগীতি ছিল?
উত্তর : ৫১ টি।

প্রশ্ন : চর্যাপদের তিব্বতী অনুবাদ কে আবিস্কার করেন?
উত্তর : ডঃ প্রবােধচন্দ্র বাগচী।

প্রশ্ন : চর্যাপদের ভাষায় কোন অঞ্চলের নমুনা পরিলক্ষিত হয়?
উত্তর : পশ্চিম বাংলার প্রাচীনতম কথ্য ভাষার।

প্রশ্ন : চট্টোপাধ্যয় কবে চর্যাপদে ভাষা বাংলা বলে প্রমান করেন?
উত্তর : ১৯২৬ সালে।

প্রশ্ন : চর্যাপদের প্রতিপাদ্য বিষয় কি?
উত্তর : চর্যাপদের মূল প্রতিপাদ্য বিষয় বৌদ্ধ সহজিয়া সিদ্ধাদের গুহ্য সাধনতত্ব এবং তৎকালীন সমাজ ও জীবনের পরিচয়।

প্রশ্ন : চর্যাপদ কোন ছন্দে রচিত ?
উত্তর : মাত্রাবৃত্তে ছন্দে।

প্রশ্ন : চর্যাপদের পুঁথি নেপালে যাবার কারন কি?
উত্তর : তুর্কী আক্রমনকারীদের ভযে পন্ডিতগণ তাদের পুথি নিযে নেপালে পালিয়ে গিয়ে শরনার্থী হয়েছিলেন।

প্রশ্ন : কীর্তিলতা পুরুষ পরীক্ষা বিভাগসার প্রভৃতি সাহিত্যকর্মের রচয়িতা কে?
উত্তর : মিথিলার কবি বিদ্যাপতি।

প্রশ্ন : কবীন্দ্রবচন সমুচ্চয় ও সদুক্তি কর্ণামৃত কাব্য কোন যুগে রচিত?
উত্তর : সেনযুগে।

প্রশ্ন : সর্বসমেত কয়টি চর্যাগীতি পাওয়া গিয়েছে?
উত্তর : সাড়ে ছেচল্লিশটি।

প্রশ্ন : সবচেয়ে বেশী পদ কে রচনা করেছেন ?
উত্তর : কাহ্নপা-১৩ টি।

প্রশ্ন : চর্যাপদের রচয়িতা কে কারা ?
উত্তর : কাহ্নপা, লুইপা, কুক্কুরীপা, ভুসুকু, সরহপাদ সহ মােট ২৪ জন।

প্রশ্ন : চর্যাপদ কোন সময়ে রচিত হয় ?
উত্তর : সপ্তম থেকে দ্বাদশ শতাব্দীর মধ্যবর্তী সমযে।

প্রশ্ন : চর্যাপদের পদগুলাে কোন কোন ভাষায় রচিত বলে দাবি করা হয়?
উত্তর : বাংলা, হিন্দী, মৈথিলী, অসমীয় ও উড়িয়া ভাষায়।

প্রশ্ন : রাজা লক্ষন সেনের রাজসভার পঞ্চরত কে কে ছিলেন?
উত্তর : উমাপতিধর, শরণ, ধােয়ী, গােবর্ধন আচার্য ও জয়দেব।

প্রশ্ন : বাংলা ছাড়া কোন কোন বাব্যগ্রন্থে বাঙালী জীবনের চিত্র রয়েছে?
উত্তর : গাথা সপ্তপদী ও প্রাকত পৈঙ্গলের।

প্রশ্ন : চন্ডীদাস সমস্যা কি?
উত্তর : বাংলা সাহিত্য একাধিক পদকর্তা নিজেকে চন্ডীদাস পরিচয় দিয়ে যে সমস্যা সৃষ্টি করেছেন তাই চন্ডীদাস সমস্যা

প্রশ্ন : বাংলা সাহিত্যে স্বীকৃত চন্ডীদাস কয়জন?
উত্তর : তিনজন। বড়ু চন্ডিদাস, দীন চন্ডিদাস এবং দ্বীজ চন্ডিদাস।

প্রশ্ন : শ্রীকৃষ্ণ কীর্তন কাব্য কোথা থেকে উদ্ধার করা হয়?
উত্তর : পশ্চিম বঙ্গের বাকুড়া জেলার কাকিলা গ্রামের এক গৃহস্থ বাড়ীর গােয়ালঘর থেকে উদ্ধার করেন।

প্রশ্ন : বৈষ্ণব পদাবলীর আদি রচয়িতা কে?
উত্তর : বড়ু চন্ডিদাস।

প্রশ্ন : আদি যুগে লােকজীবনের কথা বিধৃত সর্বপ্রথম সাহিত্যক নিদর্শন কোনটি?
উত্তর : ডাক খনার বচন।

প্রশ্ন : মধ্যযুগের বাংলা সাহিত্যর প্রধান দুটি ধারা কি ?
উত্তর : কাহিনীমূলক ও গীতিমূলক।

প্রশ্ন : শ্রী চৈতন্যর নামানুসারে মধ্যযুগের বিভাজন কিরূপ?
উত্তর : চৈতন্য পূর্ববর্তী যুগ (১২০১-১৫০০ খ্রিঃ), চৈতন্য যুগ (১৫০১-১৬০০) ও চৈতন্য পরবর্তী যুগ (১৬০১-১৮০০)

প্রশ্ন : গীত গােবিন্দ কাব্যগ্রন্থের রচয়িতার নাম কি ?
উত্তর : জয়দেব।

প্রশ্ন : ব্রজবুলি ভাষার বিখ্যাত সাহিত্যিকের/শ্রেষ্ঠ কবি নাম কি?
উত্তর : বিদ্যাপতি এবং জয়দেব।

প্রশ্ন : চৈতন্য পরবর্তী যুগ বা মধ্যযুগের শেষ কবি কে?
উত্তর : ভারতচন্দ্র রায় গুনাকর।

প্রশ্ন : আধুনিক যুগের উদগাতা কে?
উত্তর : মাইকেল মধুসূদন দত্ত।

প্রশ্ন : কোন যুগকে অবক্ষযের যুগ বলা হয় ?
উত্তর : ১৭৬০-১৮৬০সাল পর্যন্ত।

প্রশ্ন : বাংলা সাহিত্যর আধুনিক যুগের সময়কাল কমপর্বে বিভক্ত ও কি কি?
উত্তর : চারটি পর্বে বিভক্ত। যেমন- ১. প্রস্তুতি পর্ব (১৮০১-১৮০৫) খ্রিঃ, ২. বিকাশ পর্ব (১৮৫১-১৯০০) খ্রিঃ, ৩.রবীন্দ্র পর্ব (১৯০১-১৯৪০) খ্রিঃ ও ৪.অতি-আধুনিক যুগ (১৯০১ বর্তমান কালসীমা)।

প্রশ্ন : আধুনিক যুগ কোন সময় পর্যন্ত বিস্তৃত?
উত্তর : ১৮০১ সাল থেকে বর্তমান।

প্রশ্ন : যুগ সন্ধিক্ষনের কবি কে ?
উত্তর : ঈশ্বরচন্দ্র দত্ত।

প্রশ্ন : ব্রজবুলী ভাষার উদ্ভব কথন হয়?
উত্তর : কবি বিদ্যাপতি যখন মৈথিল ভাষায় রাধাকৃষ্ণ লীলার গীতসমূহ রচনা করেন।

প্রশ্ন : ব্রজবুলি ভাষা কোন জাতীয় ভাষা?
উত্তর : মৈথলী এবং বাংলা ভাষার মিশ্রনে যে ভাষার সৃষ্টি হয়।

প্রশ্ন : ব্রজবুলি কোন স্থানের উপভাষা ?
উত্তর : মিথিলার উপভাষা ।

প্রশ্ন : বাংলা ভাষায় রামায়ন কে অনুবাদ করেন?
উত্তর : কৃত্তিবাস।

প্রশ্ন : রামায়নের আদি রচয়িতা কে?
উত্তর : কবি বাল্মীকি।

প্রশ্ন : বাংলা ভাষায় মহাভারত কে অনুবাদ করেন?
উত্তর : কাশীরাম দাস।

প্রশ্ন : মহাভারতের আদি রচয়িতা কে?
উত্তর : বেদব্যাস।

প্রশ্ন : গীতি কাব্যের রচয়িতা কে?
উত্তর : গােবিন্দ্রচন্দ্র দাস।

প্রশ্ন : পুঁথি সাহিত্যের প্রথম সার্থক কবি কে?
উত্তর : ফকির গরিবুল্লাহ।

প্রশ্ন : মধ্যযুগের বাংলা সাহিত্যের শ্রেষ্ঠ কবি কে?
উত্তর : মুকুন্দরাম চক্রবর্তী।

প্রশ্ন : বাংলা ভাষা ও সাহিত্যর প্রাচীনতম শাখা কোনটি?
উত্তর : কাব্য।

প্রশ্ন : বাংলা গদ্য সাহিত্য কথন শুরু হয়?
উত্তর : আধুনিক যুগে।

প্রশ্ন : আলাওল কোন যুগের কবি?
উত্তর : মধ্য যুগের।

প্রশ্ন : মধ্যযুগের অবসান ঘটে কখন?
উত্তর : ঈশ্বর গুপ্তের মৃত্যুর সঙ্গে।

প্রশ্ন : উনিশ শতকের সবচেয়ে খ্যাতনামা বাউল শিল্পী কে?
উত্তর : লালন শাহ।

প্রশ্ন : বাংলা গদ্যের জনক কে?
উত্তর : ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর।

প্রশ্ন : আধুনিক যুগের শ্রেষ্ঠ প্রতিভু কে?
উত্তর : বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।

প্রশ্ন : বাংলা ভাষার আদি কবি ?
উত্তর : কানা হরিদত্ত।

প্রশ্ন : বাংলা গদ্যর উৎপত্তি কখন?
উত্তর : আঠার শতকে।

প্রশ্ন : কাঙ্গাল হরিনাথ কখন আবির্ভূত হন?
উত্তর : উনিশ শতকের শেষার্ধে।

প্রশ্ন : বিষাদসিন্ধু কোন যুগের গ্রন্থ?
উত্তর : আধুনিক যুগের।

প্রশ্ন : মধ্যযুগের অন্যতম সাহিত্য নিদর্শন কি?
উত্তর : পদ্মাবতী ও অন্নদামঙ্গল।

প্রশ্ন : চন্ডীদাস কোন যুগের কবি ?
উত্তর : মধ্যযুগের।

প্রশ্ন : আধুনিক বাংলা গীতি কবিতার সূত্রপাত?
উত্তর : টপ্লাগান।

প্রশ্ন : টপ্পা গানের জনক কে?
উত্তর : নিধুবাবু (রামনিধি গুপ্ত)।

প্রশ্ন : মীর মােশাররফ সাহিত্য ক্ষেত্রে আবির্ভূত হন?
উত্তর : উনিশ শতকের শেষার্ধে।

প্রশ্ন : বাংলা সাহিত্যে মহাকাব্য ধারার অন্যতম মহাকবি?
উত্তর : মাইকেল মধুসূদন দত্ত।

প্রশ্ন : বাংলা সাহিত্যে গীতিকাব্য ধারার প্রথম কবি?
উত্তর : বিহারীলাল চক্রবর্তী।

প্রশ্ন : বাংলা সাহিত্যের মধ্যযুগের প্রথম নির্দশন কি?
উত্তর : শ্রীকৃষ্ণ কীর্তন।

প্রশ্ন : শ্রীকৃষ্ণ কীর্তনকাব্য কে রচনা করেন?
উত্তর : বড় – চন্ডীদাস।

প্রশ্ন : শ্রীকৃষ্ণ কীর্তন কাব্য কোন যুগের নিদর্শন?
উত্তর : চৈতন্যপূর্ব যুগ।

প্রশ্ন : বড় – চন্ডীদাসের শ্রীকৃষ্ণ কীর্তন কাব্য কে উদ্ধার করেন?
উত্তর : বসন্তরঞ্জন রায়, ১৯০৯।

প্রশ্ন : উনিশ শতকের নাট্য সাহিত্য ধারার অন্যতম রূপকার?
উত্তর : মাইকেল মধুসুদন দত্ত।

প্রশ্ন : বাংলা সাহিত্যের প্রথম উপন্যাস কোনটি?
উত্তর : আলালের ঘরের দুলাল।

প্রশ্ন : ‘আলালের ঘরের দুলাল’ এর রচয়িতা কে?
উত্তর : প্যারীচাদ মিত্র।

প্রশ্ন : বাংলা সাহিত্য কথ্যরীতির প্রবর্তক কে?
উত্তর : প্রমথ চৌধুরী।

প্রশ্ন : ছােটগল্পের আরম্ভে ও উপসংহারে কোন গুনটি প্রধান?
উত্তর : নাটকীয়তা ।

প্রশ্ন : বাংলা ভাষায় প্রথম সামাজিক নাটক কোনটি ?
উত্তর : কুলীনকুল সর্বস্ব।

প্রশ্ন : বাংলা ভাষায় রচিত প্রথম নাটক ও নাট্যকার কে?
উত্তর : ভদ্রার্জুন- তারাচরণ সিকদার।

প্রশ্ন : বাংলা সাহিত্যর প্রথম সার্থক নাট্যকার কে?
উত্তর : মাইকেল মধুসূদন দত্ত।

প্রশ্ন : বাংলা সাহিত্যর প্রথম সার্থক ট্রাজেডি নাটক কোনটি ?
উত্তর : কৃষ্ণকুমারী।

প্রশ্ন : বাংলা সাহিত্যের প্রথম মুদ্রিত গ্রন্থ কোনটি?
উত্তর : কথােপকথন’ ।

প্রশ্ন : বাংলা উপন্যাস সাহিত্য ধারার জনক?
উত্তর : বঙ্কিম চন্দ্র চট্টোপাধ্যায়।

প্রশ্ন : রােমান্টিক প্রনয় উপাখ্যান ধারার অন্যতম কবি?
উত্তর : শাহ মুহাম্মদ সগীর।

প্রশ্ন : রােমান্টিক প্রণয় উপখ্যান ধারার অন্যতম গ্রন্থ?
উত্তর : ইউসূফ- জুলেখা।

প্রশ্ন : মঙ্গলকাব্যর ধারার অন্যতম কবি?
উত্তর : মুকুন্দরাম

প্রশ্ন : বাংলা সাহিত্য ছােটগল্পের প্রকৃত জনক?
উত্তর : রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।

প্রশ্ন : কথােপকথন’ এর রচয়িতা কে?
উত্তর : উইলিয়াম কেরি।

প্রশ্ন : ঢাকা থেকে প্রকাশিত প্রথম গ্রন্থ কোনটি?
উত্তর : নীল দর্পন।

প্রশ্ন : কোরআন শরীফ প্রথম বাংলায় অনুবাদ কে করেন?
উত্তর : ভাই গিরিশচন্দ্র সেন।

প্রশ্ন : বাংলা সনেটের জনক কে?
উত্তর : মাইকেল মধুসূদন দত্ত।

প্রশ্ন : সনেটের জনক কে?
উত্তর : ইটালীর পেত্রাক।

প্রশ্ন : ‘গাজঅকালু ও চম্পাবতী’ কোন ধরনের সাহিত্য?
উত্তর : পুঁথি সাহিত্য।

প্রশ্ন : বাংলাদেশের লােক সাহিত্যের বিখ্যাত গবেষক কে?
উত্তর : আশরাফ সিদ্দিকী।

প্রশ্ন : রূপকথা কে সংগ্রহ করেছিলেন?
উত্তর : দক্ষিণারঞ্জন মিত্র মজুমদার।

প্রশ্ন : বাংলা সাহিত্যের ইতিহাসে প্রধানত কয়টি যুগে ভাগ করা?
উত্তর : তিনটি। (প্রাচীন যুগ, মধ্যযুগ ও অধুনিক যুগ)

প্রশ্ন : ড. মুহাম্মদ শহীদুল্লাহর মতে প্রাচীন যুগের পরিধি কত পর্যন্ত বিস্তৃত ছিল?
উত্তর : ৬৫০-১২০০ সাল পর্যন্ত।

প্রশ্ন : মধ্য যুগের বাংলা ভাষার পরিধি কত সাল পর্যন্ত বিস্তৃত ছিল?
উত্তর : ১২০১-১৮০০ সাল পর্যন্ত।

(প্রাচীন সাহিত্যের পৃষ্ঠপােষকগণ):

প্রশ্ন : চর্যাপদ কোন প্রতিষ্ঠানের পৃষ্ঠপােষকতায় পুনরুদ্ধার করা হয়েছে?
উত্তর : বঙ্গীয় সাহিত্যে পরিষদ।

প্রশ্ন : মধ্যযুগে বাংলা সাহিত্যের পৃষ্ঠপােষকতায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করে?
উত্তর : পাঠান সুলতানগণ।

প্রশ্ন : মধ্যযুগে বাংলা সাহিত্যে কোন ধর্ম প্রচারকের প্রভাব অপরিসীম?
উত্তর : শ্রী চৈতন্যদেব।

প্রশ্ন : কার অনুপ্রেরণায় মহাভারতের অশ্বমেধ পর্ব অনুদিত হয়?
উত্তর : নাসিরউদ্দিন নসরৎ শাহের।

প্রশ্ন : কার রাজত্বকালে বাংলার লৌকিক কাহিনী মনসামঙ্গল রচিত হয়?
উত্তর : হুসেন শাহের।

প্রশ্ন : চৈতন্য ভাগবত কার সময় রচিত হ্য?
উত্তর : গিয়াসুদ্দীন মাহমুদ শাহের।

প্রশ্ন : কার পৃষ্ঠপােষকতায় কৃত্তিবাস রামায়ণের অনুবাদ করেন?
উত্তর : জালালুদ্দিন মুহম্মদ শাহের।

প্রশ্ন : কবি বিদ্যাপতি ও শেখ কবির কার আদেশে বৈঞ্চবপদ কাব্য রচনা করেন?
উত্তর : নাসির উদ্দিন নসরৎ শাহের।

প্রশ্ন : কবি বিজয়গুপ্ত কার আদেশে মনসামঙ্গল কাব্য রচনা করেন?
উত্তর : আলাউদ্দিন হুসেন শাহের।

প্রশ্ন : বাংলা সাহিত্যের পৃষ্ঠপােষকতার জন্য বিখ্যাত শাসক?
উত্তর : আলাউদ্দিন হুসেন শাহ।

প্রশ্ন : গিয়াসউদ্দিন আজম শাহের পৃষ্ঠপােষকতায় শাহ মুহম্মদ সগীর কোন কাব্যটি রচনা করেন?
উত্তর : ইউসূফ- জুলেখা।

প্রশ্ন : নসীয়তনামা কাব্য কার পৃষ্ঠপােষকতায় রচিত?
উত্তর : শ্রীসুধর্মের।

প্রশ্ন : কার আদেশে স্যফুল-মূলক রচিত হয়?
উত্তর : সৈয়দ মুসার আদেশে।

প্রশ্ন : কার আদেশে আলাওল সতীময়না কাব্য রচনা করেন?
উত্তর : লস্কর উজীর আশরাফ খানের।

প্রশ্ন : কবি জৈনুদ্দিন কার সভাকবি ছিলেন?
উত্তর : গৌড়ের সুলতান ইউসুফ শাহেব।

প্রশ্ন : রসুল বিজয় কাব্য কার অনুপ্রেরণায় রচিত হয়?
উত্তর : শামসুদ্দীন ইউসূফ শাহের।

প্রশ্ন : মহা বংশাবলী নামক সামাজিক ইতিহাস গ্রন্থের পৃষ্ঠপােষক কে?
উত্তর : সুলতান জালালউদ্দিন ফতেহ-ই-শাহ।

প্রশ্ন : বাংলায় সর্বপ্রথম বিদ্যাসাগর কাহিনী কার আমলে রচিত হয়?
উত্তর : হুসেন শাহের আমলে।

প্রশ্ন : কার পৃষ্ঠপােষকতায় ভারতচন্দ্র বিদ্যাসুন্দর রচনা করেন?
উত্তর : রাজা কৃষ্ণ চন্দ্রের।

প্রশ্ন : কোন কবি গিয়াস উদ্দীন আযম শাহের রাজা কর্মচারী ছিলেন?
উত্তর : শাহ মুহম্মদ সগীর।

প্রশ্ন : কবি মালাধর বসুর পৃষ্ঠপােষক কে ছিলেন?
উত্তর : শামসউদ্দিন ইউসুফ শাহ।

প্রশ্ন : রাজা লক্ষন সেনের সভাকবি কে ছিলেন?
উত্তর : ভারতচন্দ্র ।

প্রশ্ন : হােসেন শাহের পৃষ্ঠপােষকতায় কে কাব্য চর্চা করেন?
উত্তর : রূপ গােস্বামী।

প্রশ্ন : কবীন্দ্র পরমেশ্বর কার আদেশে বাংলায় মহাভারত রচনা করেন?
উত্তর : পরাগল খানের।

প্রশ্ন : ছুটি খানের সভাকবি কে ছিলেন?
উত্তর : শ্রীকর নন্দী।

প্রশ্ন : আলাওল পদ্মাবতী রচনা করেন?
উত্তর : মাগন ঠাকুরের অনুরােধে।

প্রশ্ন : কবি হাফিজকে বাংলাদেশে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন কোন নৃপতি?
উত্তর : গিয়াসউদ্দিন আজম শাহ।(প্রাচীন সাহিত্যে ধারা)

প্রশ্ন : বাংলা সাহিত্যের প্রধান প্রধান সাহিত্য ধারা কি কি?
উত্তর : গীতিকবিতা, মহাকাব্য, উপন্যাস, গল্প, নাটক, প্রহসন, প্রবন্ধ, অভিসন্দর্ভ, সমালােচনা, পত্র সাহিত্য, জীবনী সাহিত্য ইত্যাদি৷

প্রশ্ন : মধ্যযুগের অন্যতম সাহিত্য ধারা কি কি ?
উত্তর : বৈষ্ণব পদাবলী, জীবনী সাহিত্য, মঙ্গল কাব্য, কবিগান, পুঁথি সাহিত্য, অনুবাদ সাহিত্য, মর্সিয়া সাহিত্য ইত্যাদি।

প্রশ্ন : আধুনিক যুগের সাহিত্য ধারা কি কি ?
উত্তর : মহাকাব্য, গীতিকাব্য, উপন্যাস, নাটক, ছােটগল্প, প্রহসন,প্রবন্ধ, নিবন্ধ, অভিসন্দর্ভ, সমালােচনা, আত্মজীবনীমূলক সাহিত্য, পত্র সাহিত্য, গীতিনাট্য ইত্যাদি।।

(লােক সাহিত্য):
প্রশ্ন : বাংলা সাহিত্যের শেকড় সন্ধানী সাহিত্য কি?
উত্তর : লােকসাহিত্য।

প্রশ্ন : লােক সাহিত্যের প্রাচীনতম সৃস্টি কি?
উত্তর : ছড়া ও ধাঁ ধাঁ ।

প্রশ্ন : Folklore society এর কাজ কি?
উত্তর : লােকসাহিত্য চর্চা ও সংরক্ষন।

প্রশ্ন : মহুয়া পালা কোন কাহিনী নিয়ে রচিত?
উত্তর : বেদের এক অপূর্ব সুন্দরী কন্যা মহুয়ার সাথে বামনকান্দার জমিদার ব্রাহ্মন যুবক নদের চাঁদের প্রনয় কাহিনী।

প্রশ্ন : মৈমনসিংহ গীতিকার অর্ন্তগত উল্লেখযােগ্য গীতিকাগুলাে কি কি ?
উত্তর : মহুযা, চন্দ্রাবতী, কাজল রেখা, দেওয়ানা মদিনা প্রভৃতি।

প্রশ্ন : দেওয়ানা মদিনা পালাটির রচয়িতা কে?
উত্তর : মনসুর বাতি।

প্রশ্ন : বাংলাদেশ থেকে সংগৃহিত লােক গীতিকা কয়ভাগে বিভক্ত?
উত্তর : ৩ ভাগে। নাথ-গীতিকা, মৈমনসিংহ গীতিকা ও পূর্ববঙ্গ গীতিকা।

আরো পড়ুন :   বাংলা সাহিত্য থেকে গুরুত্বপূর্ণ কিছু প্রশ্নোত্তর [PDF]