এসএসসিবাংলা রচনা সম্ভার

বাংলাদেশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য

বাংলাদেশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য

ভূমিকা :

অপরূপ প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের দেশ বাংলাদেশ। প্রকৃতি যেন আপন হাতে এ দেশকে মনের মতাে করে সাজিয়েছেন। বছরের ছয়টি ঋতু পর্যায়ক্রমে বাংলাদেশকে নব নব সৌন্দর্যে বিভূষিত করে। নদীমাতৃক এ দেশের দিগন্তজোড়া ফসলের মাঠ, সবুজ গাছপালা, পাখপাখালি রূপের মাধুর্যকে আরাে বাড়িয়ে দিয়েছে।

প্রকৃতিক সৌন্দর্যের রূপ :

সাগর-মেখলা, বন-কুন্তলা, শস্য-শ্যামলা এদেশের উত্তরে ভাওয়াল, মধুপুরগড়, গেরুয়া রঙের মাটিতে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে সারি সারি গাছ। দক্ষিণে বঙ্গোপসাগর, বিস্তৃত সুন্দরবন। পূর্বদিকে শ্ৰেণীবদ্ধ পাহাড়ের সারি যেন দেহরক্ষীর মতাে দাঁড়িয়ে আছে। পাহাড়ের কোল ঘেঁষে সাজানাে চা-বাগান, বিশাল ছায়াবৃক্ষ। পাশ দিয়ে বয়ে গেছে পাহাড়ি নদী। খাল-বিল, নদ-নদী, মাঠ-ঘাট সব মিলে এ দেশকে বৈচিত্র্যময় সৌন্দর্যের অধিকারী করেছে।

ঋতুবৈচিত্র্য :

ষড়ঋতুর দেশ বাংলাদেশ। একেক ঋতু একেক রকম ফল-ফসলের বার্তা নিয়ে আসে আমাদের দ্বারে। প্রত্যেকটি ঋতুই আপন বৈশিষ্ট্যে উজ্জ্বল। গ্রীষ্ম, বর্ষা, শরৎ, হেমন্ত, শীত আর বসন্ত ঋতু-পরিক্রমার এই রূপ মাধুর্য আমাদের মুগ্ধ করে।

মানুষ ও প্রকৃতি :

বাংলাদেশের সবুজ নিসর্গ আর বৈচিত্র্যময় ভূ-প্রকৃতি এ দেশের মানুষের জীবনে গভীর প্রভাব ফেলেছে। ধর্ম-বর্ণের বিভিন্নতা সত্ত্বেও এদেশের মানুষ এক অসাম্প্রদায়িক চেতনা নিয়ে পাশাপাশি বাস করে। সহজ সরল অথচ প্রকৃতির বিরূপ বাস্তবতার সঙ্গে লড়াই করার অসীম সাহস ও শক্তি আছে এ দেশের মানুষের মনে।

উপসংহার :

প্রকৃতির বিচিত্র লীলাভূমি বাংলাদেশকে রূপসী বাংলাদেশ’ নামে অভিহিত করা হয়।

Related Articles

Back to top button