বছরে ঘটে যাওয়া সাম্প্রতিক ঘটনাগুলো জানুন।

বিসিএস পরীক্ষার জন্য আন্তর্জাতিক বিষয়াবলী থেকে ৩৫টি প্রশ্ন

আমাদের চারপাশে প্রতিদিনই ঘটছে নানা ঘটনা। বর্তমানে বিভিন্ন পত্রিকা বা সামাজিক যোগাযোগের নানা মাধ্যমের দৌলতে আজকের বিশ্বের যেকোন ঘটনা খুব কম সময়েই আমাদের হাতের কাছে পৌঁছায়।২০২২ সালে সাম্প্রতিক ঘটে যাওয়া কিছু ঘটনা আজকে আপনাদের মাঝে তুলে ধরছি।

এক মাস, দুই মাস নয়, বছরজুড়েই আতঙ্ক ছড়িয়েছে করোনা মহামারি। দেশে দেশে সরকার-প্রশাসনের বেশি সময় ব্যয় হয়েছে এর মোকাবেলায়। সারা বছরই হাসপাতাল-ক্লিনিকে ভয়ংকর ব্যস্ত সময় পার করেছেন ডাক্তার-চিকিৎসকর্মীরা। কার্যকর কিছু টিকার সুবাদে ওই বছরের শেষের দিকে কিছুটা নমনীয় হয়ে এসেছিল। কিন্তু ২০২১ এর শুরুতেই আবার শক্তি অর্জন করে। একের পর এক রূপ পালটে আরও সংক্রামক হয়ে ওঠে। ডিসেম্বরের মাঝামাঝি থেকে নতুন ধরন ওমিক্রনে তোলপাড় বিশ্ব। এতে এরই মধ্যে প্রাণ গেছে প্রায় ৫৬ লাখের বেশি।

বছরজুড়েই আলোচনায় ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। নির্বাচন, দায়িত্ব গ্রহণ থেকে শুরু করে তার বেশ কিছু সিদ্ধান্ত চর্চার বিষয় হয়েছে। ২০ জানুয়ারি প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব গ্রহণ করেন বাইডেন। তবে যুক্তরাষ্ট্রের এবারের ক্ষমতা হস্তান্তর ছিল কিছুটা ব্যতিক্রমী। প্রথা অনুযায়ী নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টের কাছে দায়িত্ব বুঝিয়ে দেন বিদায়ী প্রেসিডেন্ট। কিন্তু ট্রাম্প সেটা করেননি। বাইডেনের নেতৃত্বে যুক্তরাষ্ট্র বৈশ্বিক অঙ্গনে ফিরতে শুরু করে। ট্রাম্পের ‘আমেরিকা ফাস্ট’ নীতির বিপরীতে ‘আমেরিকা ইজ ব্যাক’ স্লোগান সামনে নিয়ে আসেন তিনি। প্যারিস জলবায়ু চুক্তি এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থায় ফেরে যুক্তরাষ্ট্র।

প্রেসিডেন্ট হিসাবে দায়িত্ব পালনকালে একের পর এক খবরের জন্ম দিয়েছেন ট্রাম্প। ক্ষমতা ছাড়ার আগ মুহূর্তে ঐতিহাসিক কলঙ্কের জন্ম দেন তিনি। নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ এনে বাইডেনের কাছে পরাজয় মানতে অস্বীকার করেন। সেই সঙ্গে ক্রমাগত সমর্থকদের উসকানি দিতে থাকেন। তার সমর্থকদের উত্তেজনা শেষ পর্যন্ত দাঙ্গায় রূপ নেয়। ৬ জানুয়ারি বাইডেনের জয়ের সত্যায়ন দিন রাজধানী ওয়াশিংটনে মার্কিন পার্লামেন্ট ভবন ক্যাপিটল হিলে হামলা ও ভাঙচুর চালায় ট্রাম্পের উগ্র সমর্থকরা। এতে নিহত হয় পাঁচজন। আহত শতাধিক। এ ঘটনাকে মার্কিন গণতন্ত্রের ওপর নগ্ন হামলা হিসাবে বর্ণনা করা হয়।

বাংলাদেশের সঙ্গে বাণিজ্যে ‘নতুন গতি’ দরকার ভারতেরগত ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশের স্বাধীনতালাভের সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। তার এ উপস্থিতি কৌশলগত দুই প্রতিবেশীর সুসম্পর্ক স্পষ্টভাবে ফুটিয়ে তোলে। তবে এ সম্পর্কের ক্ষেত্রে শক্তিশালী অর্থনৈতিক বন্ধন খুবই গুরুত্বপূর্ণ এবং এটি ক্রমেই বাংলাদেশ-ভারত দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের অন্যতম প্রধান উপাদান হয়ে উঠছে।

দুই প্রতিবেশী দেশের সম্পর্কে বাণিজ্যের ক্রমবর্ধমান গুরুত্ব ও বাংলাদেশে চীনা প্রভাব বাড়তে থাকায় ভারতের করণীয় কী হতে পারে, তা নিয়ে মতামত জানিয়েছেন দিল্লির ইনস্টিটিউট অব ইকোনমিক গ্রোথের অধ্যাপক প্রভাকর সাহো এবং ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর রিসার্চ অন ইন্টারন্যাশনাল ইকোনমিক রিলেশনসের ফেলো দুর্গেশ কে রাই। তাদের মতে, বাংলাদেশ শুধু দক্ষিণ এশিয়ায় ভারতের বৃহত্তম বাণিজ্যিক অংশীদারই নয়, তাদের অন্যতম প্রধান রপ্তানি গন্তব্যও বটে। কিন্তু, চীনের ক্রমবর্ধমান অর্থনৈতিক দক্ষতা ও দক্ষিণ এশিয়ায় কৌশলগত বিনিয়োগ সাম্প্রতিক অতীতে বাংলাদেশের বৈদেশিক অর্থনৈতিক প্রোফাইলে ভারতের প্রভাব কমিয়ে দিয়েছে।

‘ফাইজারের চতুর্থ ডোজও ওমিক্রন ঠেকাতে যথেষ্ট নয়’করোনার নতুন ধরন ওমিক্রন প্রতিরোধে ফাইজার-বায়োএনটেকের চতুর্থ ডোজও যথেষ্ট নয়, বলছেন ইসরায়েলি গবেষকরা। দেশটিতে চতুর্থ বুস্টার ডোজের ট্রায়ালের প্রাথমিক তথ্য-উপাত্ত থেকে জানা যাচ্ছে এমন তথ্য। সোমবার (১৭ জানুয়ারি) ট্রায়ালের প্রতিবেদন প্রকাশ করেন দেশটির গবেষকরা।

তেল আবিবের একটি মেডিক্যাল সেন্টারে ১৫৪ জন চিকিৎসাকর্মীর ট্রায়াল শুরুর দুই সপ্তাহ পর গবেষকরা দেখতে পান, ভ্যাকসিনটি অ্যান্টিবডির মাত্রা বাড়িয়েছে। কিন্তু সেটি ওমিক্রনের বিরুদ্ধে আংশিক প্রতিরোধ তৈরি করতে পারে বলে জানিয়েছেন গবেষক দলের প্রধান গিলি রেগেভ-ইয়োচ।

বিদেশি পার্সেল থেকে ছড়াতে পারে ওমিক্রন, সতর্ক করলো চীনবিদেশ থেকে আসা পার্সেল খোলার সময় সবাইকে মাস্ক ও গ্লাভস পরার অনুরোধ জানিয়েছে চীন। এ ধরনের পার্সেলের মাধ্যমে ওমিক্রন করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে সতর্ক করেছে তারা। দেশটিতে শনাক্ত প্রথম ওমিক্রন রোগী এভাবেই আক্রান্ত হয়েছিলেন বলে ইঙ্গিত দিয়েছে চীনা কর্তৃপক্ষ। খবর রয়টার্সের।

সোমবার (১৭ জানুয়ারি) রাতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এক পোস্টে চীনের রাষ্ট্রীয় সম্প্রচারমাধ্যম সিসিটিভি দেশটির জনগণকে বিদেশি পণ্য কেনা বা বিদেশ থেকে পার্সেল গ্রহণ কমিয়ে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে। তারা বলেছে, সামনাসামনি পণ্য ডেলিভারি নেওয়ার সময় বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করতে ভুলবেন না। অবশ্যই মাস্ক ও গ্লাভস পরুন। প্যাকেজ ঘরের বাইরে খোলার চেষ্টা করুন।

বছরে ঘটে যাওয়া সাম্প্রতিক ঘটনাগুলো জানুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Scroll to top