বাংলা ভাষার ব্যাকরণ ও নির্মিতি

নির্দেশক কাকে বলে ? কত প্রকার ও কি কি ?

যেসব লগ্নক শব্দের সঙ্গে যুক্ত হয়ে নির্দিষ্টতা বোঝায়, সেগুলোকে নির্দেশক বলে। যেমন– -টা, -টি, -খানা, -খানি, -জন, -টুকু। নিচে কয়েকটি নির্দেশকের প্রয়োগ দেখানো হলো।

ক) -টা, -টি

বিশেষ্য, সর্বনাম ও বিশেষণের সঙ্গে -টা, -টি নির্দেশক বসে। এর দুটি রূপান্তর : -টো ও -টে। যেমন– বাড়িটা, ছেলেটা, এটা, সেটা, আমারটা, কিছুটা, একটা, সারাটা, করাটা; দিনটি, মেয়েটি, একটি, কয়েকটি, আরেকটি; দুটো; তিনটে ইত্যাদি ।

খ) -খানা, -খানি

বিশেষ্য ও বিশেষণ শব্দের সঙ্গে -খানা, -খানি নির্দেশক বসে। যেমন – ব্যাপারখানা, ভাবখানা, একখানা, , আধখানা, মুখখানি, অনেকখানি ইত্যাদি। যেসব ক্ষেত্রে -টা বা -টি বসে, সেসব ক্ষেত্রে -খানা বা -খানি বসতে পারে। যেমন, বাড়িটা বা বাড়িটি না বলে বাড়িখানা বা বাড়িখানিও বলা যায় ।

এই বিভাগ থেকে আরো পড়ুন :

গ) -জন

  • শুধু মানুষের বেলায় -জন নির্দেশকের ব্যবহার হয়। যেমন– বিজ্ঞজন, লোকজন, অনেকজন, কয়জন, এতজন, পণ্ডিতজন।
  • সংখ্যার সঙ্গেও -জন নির্দেশকের ব্যবহার হয়। যেমন – একজন রাজা, দুজন ডাক্তার ইত্যাদি।
  • অধিক সংখ্যার বেলায় ‘জন’ নির্দেশকটি সংখ্যা পরে আলাদা শব্দের মতো বসে। যেমন – পাঁচ জন, পঁচিশ জন, ৪৫ জন ইত্যাদি।

ঘ) -টুকু

-টুকু নির্দেশক দিয়ে কোনো কিছুর সামান্য অংশ বা অল্প পরিমাণ বোঝায়। বিশেষ্য ও বিশেষণ শব্দের সঙ্গে নির্দেশকটি ব্যবহৃত হয়। এর রূপভেদ : -টু বা -টুক। যেমন– সাবানটুকু, হাসিটুকু, শরবতটুকু, এতটুকু, সময়টুকু, একটু, আধটু, যতটুক, ততটুক ইত্যাদি ।

অনুশীলনী

সঠিক উত্তরে টিক চিহ্ন (√) দাও ৷

১. কোনটি নির্দেশক নয়?
ক. -টা
খ. -তম
গ. -খানা
ঘ. -জন

২. -টা/-টি নির্দেশকের রূপান্তর?
ক. -টো
খ. -টুকু
গ. -তা
ঘ. -তে

৩. কিছুটা বা সামান্য অংশ বা অল্প পরিমাণ বোঝাতে কোন নির্দেশক ব্যবহৃত হয়?
ক. -টুক
খ. -টি
গ. -খানা
ঘ. -খানি

৪. কোন নির্দেশকটি শব্দের পরে আলাদাভাবে বসে?
ক. জন
খ. টুকু
গ. খানা
ঘ. খানি

৫. নির্দেশক যুক্ত হয় কোন শব্দের সঙ্গে?
ক. বিশেষ্য
খ. সর্বনাম
গ. বিশেষণ
ঘ. সবগুলোই

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button