সামাজিক স্তরবিন্যাস

আধুনিক সমাজ বলতে কি বুঝ? আধুনিক সমাজের বৈশিষ্ট্য

আধুনিক সমাজ হল সে সমাজ যেখানে মানুষ শিল্পকারখানা স্থাপন ও কৃষিক্ষেত্রে যান্ত্রিক কলাকৌশল প্রয়ােগের মাধ্যমে অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে যথেষ্ট অগ্রগতি সাধন করেছে।

প্রথমত :

আধুনিক সমাজে মানুষের জাতীয় আয় ও জীবনযাত্রার মান বৃদ্ধি লক্ষ করা যায়। অর্থাৎ আধুনিক সমাজের অন্যতম বৈশিষ্ট্য হল স্বনির্ভর হওয়া।

দ্বিতীয়ত :

আধুনিক সমাজের আরাে একটি বৈশিষ্ট্য হল রাজনীতিতে আপামর জনসাধারণের সক্রিয় অংশগ্রহণ। অর্থাৎ রাজনৈতিক চাপ সৃষ্টি করে দাবি-দাওয়া আদায় এবং নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণ যাতে কাঙিক্ষত পরিবর্তন আনতে পারে সে সুযােগ থাকতে হবে।

তৃতীয়ত :

নগরায়ন ও শিল্পায়নের দ্রুত বিকাশ আধুনিক সমাজের অন্যতম বৈশিষ্ট্য। শিল্পের সম্পসারণ, যানবাহন ও যােগাযােগ ব্যবস্থায় ব্যাপক উন্নতির মাধ্যমে জনগণের ভৌগােলিক সচলতা আধুনিক সমাজের বৈশিষ্ট্য।

চতুর্থত :

নিরক্ষরতা দূরীকরণ আধুনিক সমাজের অন্যতম বৈশিষ্ট্য। আধুনিক সমাজে কারিগরি বিদ্যার প্রসারের ফলে মানুষের শারীরিক শ্রম হ্রাস পায় এবং অবসর সময়ের পরিমাণ বৃদ্ধি পায়। শিক্ষার সম্প্রসারণের ফলে আধুনিক সমাজে কুসংস্কার ও অন্ধবিশ্বাস লােপ পায় এবং মানুষের মধ্যে ব্যক্তিস্বাধীনতা, ধর্মনিরপেক্ষতা ও যুক্তিবাদী চিন্তার প্রাধান্য লক্ষ করা যায়।

পঞ্চমত :

আধুনিক সমাজের আরেকটি বৈশিষ্ট্য হল প্রচারমাধ্যমগুলাের আধুনিকতা। জনসাধারণের নিকট নানা প্রকার তথ্য-সংবাদ এবং নানা বিষয়ে ব্যবহারিক জ্ঞান সরবরাহের জন্য সংবাদপত্র, রেডিও, টেলিভিশন তথা ইলেকট্রনিক যােগাযােগ মাধ্যমগুলাের প্রভূত উন্নতি সাধন।

ষষ্ঠত :

আধুনিক সমাজের আরাে একটি বৈশিষ্ট্য হল, এ সমাজের মানুষের মধ্যে জন্মহার ও মৃত্যুহার উভয়ই বেশ কম। কারিগরি বিদ্যা, চিকিৎসা বিদ্যা ও শিক্ষার সম্প্রসারণ এর প্রধান কারণ।

সুতরাং আধুনিক সমাজ বলতে সে সমাজকে বােঝায় যেখানে মানুষ মন-মানসিকতার দিক দিয়ে আধুনিক এবং তারা অতীতের ধ্যান-ধারণার প্রতি অন্ধ আনুগত্য না দেখিয়ে পর্যবেক্ষণ ও বিশ্লেষণ করে যুক্তিবাদী কার্যক্রম গ্রহণ করে।

Scroll to top