আকাশ-মহাকাশ সম্পর্কিত সাম্প্রতিক গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য

আকাশ-মহাকাশ

চাঁদে গাড়ি পাঠাবে টয়ােটা

জাপানি গাড়ি নির্মাতা সংস্থা টয়ােটা ২০৪০ সালের মধ্যে মানুষকে চাঁদে বসবাস এবং এরপর মঙ্গলগ্রহে বসবাসে সহায়তা করবে। জাপানের মহাকাশ সংস্থা জাপান অ্যারােস্পেস এক্সপ্লোরেশন এজেন্সির (JAEA) সঙ্গে একটি গাড়ি তৈরিতে কাজ করছে টয়ােটা। গাড়িটির নাম লুনার ক্রজার। টয়ােটা ল্যান্ড ক্ৰজার স্পাের্ট ইউটিলিটি ভেহিকলের (SUV) নাম অনুসারে গাড়িটির নামকরণ হয়। ২৮ জানুয়ারি ২০২২ টয়ােটার লুনার প্রকল্পের প্রধান তাকাও সাতাে বলেন, মানুষ এ গাড়িতে বসে খেতে, কাজ করতে, ঘুমাতে এবং অন্যদের সঙ্গে নিরাপদে যােগাযােগ করতে পারবে।

শনির চাঁদ মহাসাগর

সৌরজগতের দ্বিতীয় বৃহত্তম গ্রহ শনির উপগ্রহগুলাের অন্যতম একটি মিমাস। এ উপগ্রহের পরিবেশ অনেকটা পৃথিবীর মতাে উষ্ণ। এতে রয়েছে মহাসাগর। অন্তত ২৪-৩১ কিলােমিটার পুরু বরফে আচ্ছাদিত মিমাস। মহাসাগরের তরল পানির স্পর্শ পেতে বরফের পুরু আস্তরণ ভেদ করতে হবে বলে দাবি করেন যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসার গবেষকরা। তারা উপগ্রহটি থেকে সংগ্রহ করা ক্যাসিনি মিশনের তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে সেখানে। মহাসাগর থাকার বিষয়ে সিদ্ধান্তে পৌঁছেন।

মহাকাশে গুপ্তচর স্যাটেলাইট

২ ফেব্রুয়ারি ২০২২ যুক্তরাষ্ট্র নজরদারির জন্য মহাকাশে নতুন আরেকটি গুপ্তচর স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করে। SpaceX এর ফ্যালকন-৯ রকেটের মাধ্যমে NROL-87 স্যাটেলাইটটি সফলভাবে কক্ষপথে পাঠানাে হয়। যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীভুক্ত সংস্থা ন্যাশনাল রিকনসেন্স অফিস (NRO) স্যাটেলাইটটি তৈরি করেছে। দেশটির স্পেস ফোর্স এটি তত্ত্বাবধানের দায়িত্বে রয়েছে। এটি মূলত স্যাটেলাইট দেখাশােনার কাজ করে থাকে। উত্তর ভার্জিনিয়ায় ওয়াশিংটনের কাছে NRO’র সদর দপ্তর ।

বায়ুমণ্ডলে ৪০ স্যাটেলাইট ধ্বংস

৩ ফেব্রুয়ারি ২০২২ মার্কিন ধনকুবের এলন মাস্কের অ্যারােস্পেস কোম্পানি SpaceX’র উচ্চগতির ইন্টারনেট স্যাটেলাইট প্রতিষ্ঠান স্টারলিংক যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে ৪৯টি উপগ্রহ উৎক্ষেপণ করে। সেগুলাে পৃথিবী থেকে প্রায় ২১০ কিলােমিটার ওপরে স্থাপন করা হয়। কিন্তু ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২২ ভূ-চুম্বকীয় ঝড়ের কবলে পড়ে কক্ষপথ থেকে ছিটকে পড়ে ৪০টি স্যাটেলাইট ধ্বংস হয়। সাধারণত ভূ-চুম্বকীয় ঝড়ের কারণে বায়ুমণ্ডলের উষ্ণতা বৃদ্ধি পায়।

বাসযােগ্য গ্রহের খোঁজ

কোনাে একটি মৃত নক্ষত্রের কাছে প্রাণধারণের উপযােগী একটি গ্রহের সন্ধান পাওয়া যেতে পারে বলে ধারণা করছেন বিজ্ঞানীরা। বিষয়টি নিশ্চিত হলে প্রথমবারের মতাে শ্বেতবামন নক্ষত্রকে প্রদক্ষিণ করা জীবন টিকিয়ে রাখার উপযােগী গ্রহের খোঁজ মিলবে। সম্ভাব্য গ্রহটি পৃথিবী থেকে ১১৭ আলােকবর্ষ দূরে। মৃত তারাকেই বলা হয় শ্বেতবামন বা হােয়াইট ডােয়ার্ফ।

ISS’র বিদায় ২০৩১ সালে

আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশন (ISS) ২০৩০ সাল পর্যন্ত কাজ চালিয়ে যাওয়ার পর পৃথিবীতে ধসে পড়বে। ৩১ জানুয়ারি ২০২২ নাসা জানায় ২০৩১ সালের শুরুর দিকে এটি বিধ্বস্ত হয়ে পয়েন্ট নেমাে নামে পরিচিত প্রশান্ত মহাসাগরের একটি অংশে পড়বে। পয়েন্ট নেমাে পৃথিবীর স্থলভূমি থেকে সবচেয়ে দূরে অবস্থিত। এটি মহাকাশযানের কবরস্থান’ নামেও পরিচিত। উল্লেখ্য, ২০ নভেম্বর ১৯৯৮ আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশন নির্মাণ করার জন্য পৃথিবীর কক্ষপথে প্রথম যে অংশটি পাঠানাে হয়, তার নাম Zarya। এরপর ধীরে ধীরে বিভিন্ন অংশকে মহাকাশ স্টেশনের সাথে যুক্ত করে তৈরি হয় আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশন। ২০১১ সালে ISS’র নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়।

মহাকাশে যৌথ মিশন

মহাকাশে যৌথ মিশন ঞ্জ করে মধ্যপ্রাচ্যের উপসাগরীয় অঞ্চলের দুই দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইন। ইতােমধ্যে সম্মিলিত উদ্যোগে প্রথমবারের মতাে মহাকাশে একটি কৃত্রিম উপগ্রহ (স্যাটেলাইট) পাঠায় দেশ দু’টি। আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনের Tsukuba Space Centre (TKSC) থেকে উৎক্ষেপণ করা হয় Light-1 নামের এই স্যাটেলাইটটি। এটির মূল কাজ হবে ঝড়াে আবহাওয়া ও মেঘে মেঘে ঘর্ষণের ফলে যে গামা রশ্মি নির্গত হয় তার তথ্য সংগ্রহ-সংরক্ষণ করা ও সেসব তথ্য পাঠানাে। ২১ ডিসেম্বর ২০২১ Light-1 নামের স্যাটেলাইটটি উৎক্ষেপণ করা হয় ।

বাংলাদেশের প্রথম রকেট

বাংলাদেশে এই প্রথম রকেট তৈরি করে ময়মনসিংহ ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের একঝাক তরুণ মেধাবী শিক্ষার্থী। তারা নিজেদের মেধা-মনন আর পরিশ্রমে ধূমকেতুএক্স-প্রজেক্ট এর ব্যানারে এবং ধুমকেতু এক্স টিমের সহায়তায় ধূমকেতু ০.১ এবং ধূমকেতু ০.২ নামের দুইটি রকেট তৈরি করে। এছাড়া ধূমকেতু-১ ও ধূমকেতু-২ নামে দুটি মডেলের আরও চারটি রকেট তৈরি করা হয়। ধূমকেতু-১ লম্বায় ৮ ফুট করে, দুটি মিলে ১৬ ফুট লম্বা। আর ধূমকেতু-২ প্রতিটি ৬ ফিট করে, দুটি মিলে ১২ ফিট লম্বা। আর আয়তনের দিক থেকে বড় রকেটটি ৬ ইঞ্চি এবং ছােটটি ৪ ইঞ্চি।

আকাশ-মহাকাশ সম্পর্কিত সাম্প্রতিক গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Scroll to top